জায়েদের ‘মিথ্যাচার’ শুনে অবাক হচ্ছি: রিয়াজ

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির বিদায়ী সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের বিরুদ্ধে বহু অনিয়মের অভিযোগ উঠছে। এই অনিয়মের বিরুদ্ধে কথা বলায় চিত্রনায়ক রিয়াজকে ‘স্বার্থান্বেষী’ ইঙ্গিত দিয়ে সম্প্রতি সাক্ষাৎকারে জায়েদ খান বলেন, ‌‌‘শিল্পীদের জন্য ফান্ড গঠন করতে একটি চ্যারিটি অনুষ্ঠান করা হয়েছিল নরসিংদীর ড্রিম হলিডে পার্কে। সেখান থেকে পারিশ্রমিক হিসেবে ৫০ হাজার করে টাকা নিয়েছেন রিয়াজ।’

শুধু রিয়াজ নন, তার সঙ্গে টাকার ভাগ নিয়েছেন ফেরদৌস এবং পপিও। অস্বচ্ছল শিল্পীদের চ্যারিটি অনুষ্ঠান থেকে টাকা নেয়া প্রসঙ্গে রিয়াজ চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ‘আমি খুবই অবাক হচ্ছি এরকম মিথ্যাচার শুনে। আমি, ফেরদৌস বা পপি- কেউ কী ৫০ হাজার টাকা পারিশ্রমিকের শিল্পী? এমন স্বস্তা হলে তো দিনে চারটা করে শো করতে পারতাম। সবাইকে নিজেদের মাপের মনে করে ওরা?’

সদ্য চ্যানেল আই অনলাইনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে জায়েদের ভাষ্য, সেই শো থেকে উঠেছিল ৮ লাখ টাকার মতো। তার মধ্যে ৪ লাখ টাকা শিল্পী সমিতির ফান্ডে জমা হয়েছে। বাকি টাকা রিয়াজ-ফেরদৌস-পপি ৫০ হাজার করে ভাগ নিয়েছেন। আর বাকী চার লাখ টাকা যারা পারফর্ম করেছে তাদের দেয়া হয়েছে।

রিয়াজ বললেন, যেটা নেয়া হয়েছে সেটা পারিশ্রমিক হিসেবে নয়। ড্রেস ও অন্যান্য বাবদ। আর তা নির্ধারণ করা হয়েছে সবাই মিলেই। পারফর্ম করেছি আমি, ফেরদৌস, পপি, অপু বিশ্বাস ও জায়েদ খান। তো আমি, ফেরদৌস ও পপি যদি ৫০ হাজার করে দেড় লাখ টাকা নিয়ে থাকি বাকি আড়াই লাখ টাকা কোথায়? সেগুলো কে নিয়েছে?’

রিয়াজ বলেন, ‘মিশা সওদাগর অনুষ্ঠানেই যাননি। তাহলে মিশার টাকা নেয়ার প্রশ্ন আসে কেন?’

চিত্রনায়ক রিয়াজ আরও যোগ করেন, ‘তারা বলে নানা উন্নয়নে ফান্ডের টাকা খরচ করা হয়েছে। সব মিলিয়ে দুই বছরে ৫৮ লাখেরও বেশি টাকা এসেছে। কোন খাতে কী খরচ হয়েছে আছে তার কোনো হিসেব? কমিটির সদস্যরা সে হিসেব চাইলে অন্যায়?’

সূত্রঃ চ্যানেল আই অনলাইন

বিনোদন প্রতিবেদক:
Designed by SB Shuvo